Wednesday , September 20 2017
Home / Mix News / ৪০০০ হাজার টাকায় গুগলের জমি কিনুন|গুগল ম্যাপের অফিস এখন শ্যামলী-আদাবরে

৪০০০ হাজার টাকায় গুগলের জমি কিনুন|গুগল ম্যাপের অফিস এখন শ্যামলী-আদাবরে

এক বাংলাদেশীর অবিস্মরণীয় ব্যবসায়ী উদ্ভাবন : গুগল ম্যাপের অফিস এখন শ্যামলী-আদাবরে।

আদনান মুকিতআদনান মুকিতএখানে যে আদনান মুকিতকে দেখা যাচ্ছে সে আসলে আদনান মুকিত না, আদনান মুকিত নামের অন্য কেউ। আসলে আদনান মুকিত কখনো আদনান মুকিত হতে চায়নি। সে হতে চেয়েছিল এমন একজন যাকে মানুষ চিনবে আদনান মুকিত নামে। কিন্তু হায়, মানুষজন তাকে আদনান মুকিত নামে না চিনে চিনলো আদনান মুকিত হিসেবে। এজন্যই এখন ইআরকিতে লিখছে সে আদনান মুকিত ছদ্মনামে।

 

বিশ্ববিখ্যাত সার্চ ইঞ্জিন গুগলের লোকেশন সার্ভিস গুগল ম্যাপ। কোনো জায়গা অনুসন্ধানের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় এই সার্ভিসটি। সম্প্রতি গুগল কর্তৃপক্ষ এই সেবাটি বাংলাদেশীদের জন্য আরও উন্মুক্ত করে দিতে স্থাপন করেছে একটি কান্ট্রি অফিস, যা ঢাকার শ্যামলী-আদাবরে অবস্থিত।

বর্তমানে এই অফিস থেকেই পরিচালিত হচ্ছে গুগল পিন পয়েন্টিং কার্যক্রম। মাত্র চার হাজার থেকে দশ হাজার টাকায় যে কেউ চাইলেই তার প্রতিষ্ঠান, বাসা, চায়ের দোকান ইত্যাদির লোকেশন পিন করতে পারবেন। যা শুধু বাংলাদেশ নয়, পুরো বিশ্বেই এটি একটি বিরল ঘটনা।

এই পুরো ব্যাপারটি সম্ভব হয়েছে মো. তানভীর আহমেদ নামের একজন উদ্যোক্তার অবিস্মরণীয় উদ্ভাবনের কারণে। শত শত বাংলাদেশী উদ্ভাবক নিয়মিত সমৃদ্ধ করে তুলছেন সারা পৃথিবীকে। মো. তানভীর আহমেদ এদের মধ্যে অন্যতম। স্বল্প টাকায় জনগণকে গুগল ম্যাপে অন্তর্ভূক্ত করার মহান ব্রত নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন তিনি। ৪ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকার বিনিময়ে তথ্য হালনাগাদ ও স্বীকৃতির ব্যবস্থা করে দিচ্ছেন। এ পর্যণ্ত অসংখ্য প্রতিষ্ঠান তার সেবা নিয়ে ধন্য হয়েছে। ব্যবসায় প্রসারের জন্য অন্য সবার মতো তিনিও ঢাকা এবং ইউকের ঠিকানায় ভিজিটিং কার্ড ছাপিয়েছেন। তিনি সবাইকে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, “ঢাকা এবং ইউকের বাইরে গুগল ম্যাপসের আমাদের আর কোন শাখা নেই। আমেরিকান গুগল নকল। তাই সেখান থেকে কিছু খরিদ করে প্রতারিত হলে আমরা দায়ী থাকবো না।”
13230161_901313626647685_8300696101068783185_n
13226992_901313656647682_1262057293307060305_n
13226935_901313703314344_5449230490912200796_n

যদিও গুগল ম্যাপের এই সেবা পেতে কোনো টাকা খরচ হয় না, যে কেউ চাইলেই গুগলের এই সেবাটি বিনামূল্যে পেতে পারেন। তারপরও তানভীরের এই উদ্যোগ নি:সন্দেহে অবিস্মরণীয়। কম্পোজ তো চাইলে আপনি বাসায় করতে পারেন, তাই বলে কি দেশে কম্পোজের ব্যবসা চলছে না? তানভীরের এই উদ্যোগকে তাই অবহেলা করার সুযোগ নেই। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তানভীর আমাদের দেশের একজন সম্পদ। তাই জাতীয় স্বার্থে তার পুরো শরীর ফ্লাই অ্যাশবিহীন সিমেন্ট দিয়ে বাধিয়ে রাখা উচিত।

অসমর্থিত একটি সূত্রে জানা গেছে, মাউন্টেন ভিউয়ের গুগল হেডকোয়ার্টার থেকে বেশ কয়েকবার ফোন দেয়া হলেও ব্যস্ততার কারণে তা রিসিভ করার সময় পাননি তানভীর। এতে ক্ষুব্ধ গুগল তাদের প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছে, ‌’আমাদের ফোন তো ধরলো না, বুঝবে ঠেলা, এবার সেলিম ওসমানকে দিয়ে আমরা ফোন দেওয়াবো।’

সর্বশেষ প্রাপ্ত খবরে জানা যায় সেলিম ওসমানকে ফোনে পুরো ব্যাপারটি বুঝিয়ে বলতে গিয়ে গুগলের দুজন কর্মকর্তা চাকরি ছেড়ে দিয়ে মানসিক বিকারগ্রস্থ হয়ে আমেরিকার রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছে।

তবে তানভীরের এই সাফল্যে ঈর্ষান্বিত হয়ে ফেসবুকে অনেকেই নানা ধরনের স্ট্যাটাস পোস্ট করছেন। আ** জে** চৌধুরী নামে একজন পোস্ট করেছেন:
adeeba-screenshot“আজকাল গুগল ম্যপের জমিও বেচাকেনা শুরু করেছে কিছু ফ্রড বাটপার।

গতকাল আমার রেস্টুরেন্টে দুই “ভদ্রলোক” এসে জানায় তারা গুগল অফিস থেকে এসেছে, রেস্টুরেন্টের ম্যনেজারকে তারা গুগলের লোগো বসানো ভিজিটং কাড’ ও ফর্ম দিয়ে জানাল তারা গুগল ম্যপে আমাদের রেস্টুরেন্টের “লাইফ লং” ম্যপ মার্ক করে দিবে, রেজিস্ট্রেশন ফি ৬৮০০ টাকা। ম্যনেজার আমাকে ফোন দিয়ে জানায় গুগল থেকে ম্যপ মারকিং করতে এসেছে। আমি জানালাম মার্ক তো আমি নিজেই করলাম একবার। ম্যানেজার জানালো কিন্তু ওইটা নাকি ট্রায়াল। কিছুদিন পর ডিলেট হয়ে যাবে। আমি বললাম আচ্ছা কথা বল ওদের সাথে যা যা করনীয় তাই কর। এমন সময় আমার মা রেস্টুরেন্টে গিয়েই জানতে পারে ৬৮০০ টাকায় আমাদের রেস্টুরেন্টের ম্যপ মারকিং করা হয়েছে। আমাকে জানালেন আম্মু, আমি বললাম আমি যতদুর জানি এই সার্ভিস গুগল থেকে ফ্রি দেয়া হয়। কিন্তু ততক্ষনে “ভদ্রলোক” দুইজন আমার ভারচুয়াল জমি আমাকেই বেচে পগার পার। তবে আম্মু বুদ্ধি করে ওই দুই জনের সাথে একটা ছবি তুলে নেয় যেহেতু কিছুটা সন্দেহজনক তার কাছেও মনে হয়েছিল। আমাকে যখনই জানানো হল – আমি তাদের একজনকে ফোন দিয়ে বললাম, ম্যপ মারকিং এর জন্য গুগল তো টাকা নেয় না, আমি নিজেই আমাদের লোকেশন মার্ক করেছি। তিনি বললেন, আপনি যেটা করেছেন ওইটা ” লাইফ লং” না। গুগল আমাদের দিয়ে লোকাশন মার্ক করায়, গুগল না নিলেও আমরা ফি নেই। আমি জিজ্ঞেস করলাম, আপনারা আবার কারা? গুগলের ভিসিটিং কাড’, ফর্ম নাকি দেখিয়েছেন আমাদের ম্যনেজারকে। তিনি জানালেন, তাদের কোম্পানির নাম allbrandvision। ম্যপ মারকিং, এসএমএস মারকেটিং সহ আরো অনেক ধরনের সারভিস দিয়েন থাকেন তারা। আমি বললাম, ফাজলামি পেয়েছেন? আমার টাকা এখনি এসে ফেরত দিয়ে যান, আমি আধা ঘন্টা সময় দিলাম, আর এর মাঝে যদি আপনার ফোন বন্ধ পাই আমি থানায় যাব, আপনাদের ছবিও আছে আমার মার কাছে। টাকা ফেরত দিয়ে যাবেন, তা না হলে আপনাদের খবর আছে। “ভদ্রলোক” বললেন, এখানে আমাদের কোনও দোষ নাই, কোম্পানি থেকে যা বলে পাঠিয়েছে তাই করেছি। ঠিক আছে আমি এখনি বিকাশ করে টাকা পাঠয়ে দিচ্ছি।’

যাই হোক টাকা ফেরত পেলাম, এদের পেজে গিয়ে দেখলাম তাদের ক্লায়েন্ট লিস্ট। ভালো ভালো সেয়ানাদেরই বোকা বানিয়েছে।

যা বুঝলাম, বাটপারির ব্যবসায় প্রফিট একেবারে ১০০% যদি না পরে ধরা।”

আ** চৌধুরী নামে একজন পোস্ট করেছেন:

abir
“Google map – A project of Tech Sfrait Corporation ” named a company creates business location in Google map for 4000/- BDT only which you can do by yourself free of cost. But the main fact is i created a map location in Google map a month ago by myself. And a man named ‘Tanvir Ahamed’ came yesterday and he claims there is not enough information and he will update it and verify it and took 4000 BDT by forcing my friend, which location already verified and have enough information.

You can see the pictures below…
Now you can say the next step in comment..

Please share and let others know about this…”

এইসব অভিযোগ বিষয়ে তানভীর জানায়, ব্যবসার পথে বাধা আসবেই। তবুও এগিয়ে যেতেই হবে। এরপর তিনি অপ্রাসঙ্গিক ভাবে গেয়ে উঠেন, ‘এই ম্যাপ যদি না শেষ হয়, তবে কেমন হতো তুমি বলো তো…না না তুমিই বলো!’

Collect From EarkiDotKom

Divert More Traffic
For Your Website

Subscribe to our mailing list and get interesting stuff and updates to your email inbox.

Web Design BangladeshWeb Design BangladeshMymensingh